মাঘের শীতে বাঘ নয়, কাঁপছে পঞ্চগড়বাসী

শেয়ার করুন

কথায় আছে ‘মাঘের শীতে বাঘ কাঁপে’। তবে বাঘ কাঁপছে কি না-তা জানা না গেলেও গত কয়েক দিনের ঘন কুয়াশা আর মেঘ-বৃষ্টির খেলা শেষে শীতে কাঁপছে পঞ্চগড়বাসী। ঘন কুয়াশা হিম বাতাস আর শীতে স্থবির হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। বসন্তের কাছে মিলিয়ে যাওয়ার আগে পর্যন্ত এর তীব্রতা থাকবে বলে মনে করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ইতোমধ্যেই গত কয়েকদিন ধরে পঞ্চগড়ে বেশিরভাগ এলাকার  ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে চলেছে এবং আগামী কিছুদিন মধ্যদুপুর পর্যন্ত মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা থাকতে পারে বলে জানিয়েছে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিস।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) সকালে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহ জানিয়েছেন, আজ সকালে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আগের কয়েক দিনের তুলনায় সামান্য বাড়লেও কমেনি কুয়াশা ও উত্তরের হিমেল বাতাসের দাপট। মাঘের হিমশীতল বাতাসে কাবু হয়ে পড়েছে দেশের উত্তরাঞ্চলের জনজীবন। হিমেল বাতাসের সঙ্গে কুয়াশার দাপট বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। তীব্র শীত ও কুয়াশায় শীতজনিত রোগ বাড়ার পাশাপাশি ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে ফসলেরও।

মাঘের শীতে বাঘ নয়, কাঁপছে পঞ্চগড়বাসী

এর আগে গত শুক্রবার থেকে গতকাল বুধবার পর্যন্ত টানা ছয় দিন তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যাপ্ত ওঠানামা করে। বয়ে যায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। ঘন কুয়াশা আর হিমেল বাতাসের কারণে অনেকটাই থমকে গেছে পঞ্চগড়ের জনজীবন। গতকাল রাত থেকেই বৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা। সকাল থেকে ঘন কুয়াশায় সামনের পথ পরিষ্কার দেখা যায় না। তাই সড়কগুলোয় হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে।

যেভাবে নিউজ পাঠাবেননিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ panchagarhonline@gmail.com এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই পঞ্চগড় জেলার সম্পর্কিত হতে হবে।

এখানে আপনার মন্তব্য  জানান

বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, পঞ্চগড় অনলাইন ডট কম এর দায়ভার নেবে না।
Back to top button