বাঘ আতঙ্কে নির্ঘুম এলাকাবাসী

শেয়ার করুন

পঞ্চগড় সদর উপজেলার ৬নং সাতমেরা ইউনিয়নের মুহুরীজোত সহ ৩ গ্রাম বাসী পাশ্ববর্তী ভারত থেকে আসা বাঘের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। একের পর এক গৃহপালিত পশু খেয়ে ফেলছে বাঘ। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এলাকাবাসী। বাঘের আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে গ্রামের মানুষ রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে।

স্থানীয়রা জানায়, গত ২৫/০৭/২০২০ইং (শনিবার) রাত ১০ টার দিকে পঞ্চগড় তেতুলিয়া মহাসড়কের দশ মাইল মহুরিজোত নামক স্থানে রাস্তা পারাপারের সময় এরা বাঘটিকে দেখে ফেলে পরে চিল্লাচিল্লি করলে গ্রামের সমস্ত মানুষ ঘটনাস্থলে এসে বাঘটিকে খুঁজাখুঁজি শুরু করে ওই রাতেই মুহুরীর জোত গ্রামের কবির হোসেন বাড়ির গোয়াল ঘরে বাঘটি হামলা চালায় একটি ছাগল খেয়ে ফেলে। পরের রাতে হিন্দু পাড়া গ্রামের আরো একটি ছাগল খেয়ে ফেলে, সাহিবিজোত গ্রামের আকবর হোসেনের মুরগীর খোপে হামলা চালায়। প্রতিনিয়ত বাঘ আতঙ্ক বিরাজ করছে মুহুরীর জোত, হিন্দু পাড়া, সাহিবিজোত সহ সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে। বাঘ আতঙ্কে গ্রামের নারী-শিশু-বৃদ্ধ সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে বের হচ্ছে না।

এ ঘটনায় স্থানীয় লোকজন রাতে টর্চ লাইট ও লাঠি সোটা নিয়ে বের হলে চার হাত লম্বা আকৃতির বাঘ দেখতে পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন।

এই বিষয়ে এলাকাবাসী, রমজান আলী (৪০) জানান, বেশ কিছুদিন থেকে এই এলাকায় একটি বাঘ দেখা যাওয়ায় এলাকাবাসী আতংকের মধ্যে রয়েছেন। তবে বাঘটি হিংস্র নয়, তার কারণ দীর্ঘদিন আশেপাশে ঘুরাফেরা করলেও কোনো মানুষকে ক্ষতি করেনি।

বাঘটি বন্যার পানির স্রোতের তোড়ে পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে ভেসে আসতে পারে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে পঞ্চগড় সদর উপজেলা রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল হাই তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে বন্যার পানিতে ভেসে আসতে পারে।

যেভাবে নিউজ পাঠাবেননিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ [email protected] এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই পঞ্চগড় জেলার সম্পর্কিত হতে হবে।

এখানে আপনার মন্তব্য  জানান

বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, পঞ্চগড় অনলাইন ডট কম এর দায়ভার নেবে না।

মন্তব্য করুন

Back to top button