ধর্ষণ মামলা আপোষে চাপ, নিপীড়িতার আত্মহত্যার চেষ্টা

শেয়ার করুন

পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারীতে অ্যাডভোকেট কর্তৃক ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর মামলায় আপোষের চাপ দেওয়ার কারণে কীটনাশক (বিষ) পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে ভুক্তভোগী কিশোরী। রোববার (১৩ ডিসেম্বর) আনুমানিক রাত ৯টায় আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

জেলার আটোয়ারী উপজেলার আলোয়াখোয়া ইউনিয়নের গত ১১ সেপ্টেম্বর মোলানিপাড়া গ্রামের দশম শ্রেণীর স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়। এ নিয়ে গত ১২ সেপ্টেম্বর আটোয়ারী উপজেলা পরিষদের সামনে পঞ্চগড় সড়কে আটোয়ারীবাসীর উদ্দ্যোগে ধর্ষকের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনের প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন আটোয়ারী উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও কথিত সাংবাদিক মনোজ রায় হিরু ও আলোয়া খোয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য রতন বিলাস বর্মন। কিন্তু মানববন্ধনে যারা ধর্ষকের ফাঁসির দাবিতে শ্লোগান দিয়েছিল, তাদের মধ্যেই পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও কথিত সাংবাদিক মনোজ রায় হিরু ও আলোয়াখোয়া ইউনিয়ন এর মোলানি গ্রামের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রতন বিলাস বর্মনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার বিষয়টি আপোষ মিমাংসার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠার অভিযোগ উঠেছে। তারা বিভিন্নভাবে ধর্ষিতা ওই ছাত্রীর পরিবারকে বিভিন্নভাবে চাপ দিচ্ছেন।

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী আপোষ মীমাংসা বিষয়টি জানতে পারলে তিনি কীটনাশক  (বিষ) পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বর্তমানে ওই ছাত্রী আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মহিলা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে লড়ছে।

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর মা ও বাবা বলেন, ‘আটোয়ারী উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও কথিত সাংবাদিক মনোজ রায় হিরু ও আলোয়াখোয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মৌলানি গ্রামের ইউপি সদস্য রতন বিলাস বর্মন ধর্ষণ মামলার বিষয়টি আপোষ মিমাংসার জন্য কাগজপত্র প্রস্তুত করে এবং বাসায় এসে আমাকে জানায়। আমার মেয়ে বিষয়টি জানতে পেরে আপোষ মিমাংসার জন্য অসম্মতি প্রকাশ করে, তারপরেও তারা আমার মেয়েকে চাপ সৃষ্টি করে। এমতাবস্থায় আমার মেয়ে নিরুপায় হয়ে কীটনাশক (বিষ) পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।’

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর বাবা আরো বলেন, ‘আমার মেয়েকে যারা ন্যায্যবিচার থেকে বঞ্চিত করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে, আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

আটোয়ারী উপজেলা পঃপঃ কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির বলেন, ‘মেয়েটি কীটনাশক পান করে আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি হয়েছে। ৭২ ঘণ্টা পরেই জানা যাবে শারীরিক অবস্থা।’

পঞ্চগড় সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদর্শন রায় জানান, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সূত্র
www.obhijatra.com
যেভাবে নিউজ পাঠাবেননিউজ পাঠাতে ইচ্ছুক যে কেউ [email protected] এই ঠিকানায় নিজের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে নিউজ পাঠাতে পারেন। আমরা যাচাই বাচাই শেষে আপনার নিউজ যথারীতি প্রকাশ করবো। উল্লেখ্য, নিউজগুলো অবশ্যই পঞ্চগড় জেলার সম্পর্কিত হতে হবে।

এখানে আপনার মন্তব্য  জানান

Back to top button